দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৮ অক্টোবর ২০১৪

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতা

 

 

আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতাঃ

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিকতর দক্ষতার সাথে সম্পাদনের লক্ষ্যে অন্যান্য দেশ এবং আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক সংস্থাসমূহের সাথে বিভিন্ন চুক্তি সম্পাদন ও এর আলোকে গৃহীত কার্যক্রম দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা  ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সমন্বয় সাধন করছে। এর আলোকে এ মন্ত্রণালয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় কারিগরি ও আঞ্চলিক সহায়তাদানকারী বেশ কয়েকটি দেশ এবং আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক সংস্থাসমূহের সাথে বিভিন্ন চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সম্পাদন করেছে এবং করছে। গত নভেম্বর, ২০১১ মাসে সরকার সার্কভূক্ত দেশসমূহের সাথে SAARC Agreement on Rapid Response to Natural Disasters-শীর্ষক একটি চু্ক্তি সম্পাদন করেছে। এই চুক্তির আওতায় সার্কভূক্ত দেশসমূহ দুর্যোগে জরুরি সাড়াদানে দ্রুত এগিয়ে আসতে পারবে। SAARC Disaster Management Centre (SDMC) এর গভর্নিং বোর্ডের সদস্য হিসেবে বাংলাদেশ এর কার্যক্রমে বিভিন্ন Roadmap তৈরিতে সক্রিয় ভূমিকা রাখছে।

SDMC’র সহায়তায় Earth Observation Satellite for Disaster Risk Reduction in South Asia, Digital Vulnerablity in Asia, South Asia Disaster Knowledge Network (SADKN), Seismic Hazard Assessment, Implementation of Roadmap on landslide Risk Masnagement in South Aisa, Implementation of Risk Management on Urban Risk Management, Implementation on Roadmap on drought Risk Managment প্রভৃতি বিষয়ে কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। Asian Disaster Reduction Center (ADRC) এর চাঁদা দাতা সক্রিয় সদস্য হিসেবে এর সহিত বিভিন্ন গবেষণা কার্যক্রমে অংশ নিচ্ছে। United Nations International Strategy for Disaster Reduction (UNISDR) এর সক্রিয় সদস্য হিসেবে বাংলাদেশ এর সভাসমূহে যোগদান করে আসছে। UNISDR-এর উদ্যোগে “Revealing Risk, Redifining Development” শীর্ষক Global Assessment Report on Disaster Risk Reduction-2011 প্রকাশিত হয়েছে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ এর অগ্রগতি প্রতিবেদন প্রতিফলিত হয়েছে। Asian Ministerial Conference on Disaster Reduction (AMCDRR) এর মন্ত্রী পর্যায়ের সভাতে বাংলাদেশ অংশগ্রহণ করে আসছে।

এছাড়াও United Nations Platform for Space-based Information for Disaster Management on Emergency Response (UNSPIDER) বাংলাদেশে এর Technical Advisory Mission পাঠিয়ে সমীক্ষা চালিয়ে প্রতিবেদন দাখিল করেছে। সেমতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় স্যাটেলাইট প্রযুক্তি ব্যবহার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হচ্ছে। বিষয়টির ওপর সম্প্রতি SPARRSO-তে চীন ভিত্তিক  APSCO এর সহায়তায় একটি আন্তর্জাতিক ট্রেনিং সম্পন্ন হয়েছে। সরকার ADPC’র সহিত Program for Enhancement of Emergency Response (PEER) সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক সম্পাদনের মাধ্যমে ভূমিকম্প ও অন্যান্য দুর্যোগ মোকাবেলায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এবং হাসপাতাল ব্যবস্থাপনায় সক্ষমতা বৃদ্ধির কার্যক্রম শুরু করেছে। DHL-এর সহযোগিতায় দুর্যোগ পরবর্তী বিমান বন্দর প্রস্তুত রাখার বিষয়ে ঢাকা ও চট্টগ্রামে Get your Airport Ready for Disaster বিষয়ে ইতোমধ্যে একটি ট্রেনিং ও ওয়ার্কসপ সম্পন্ন হয়েছে।

টেকসই সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী নির্মানের লক্ষ্যে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় বিভিন্ন সামাজিক নিরাপত্তামূলক কর্মসূচি যথাঃ ভিজিএফ, কাবিখা, টিআর ও অতি দরিদ্রদের কর্মসংস্থান কর্মসূচি দেশের দরিদ্র অঞ্চল বিশেষ করে উপকূলীয় দুর্যোগ প্রবণ জেলাসমূহ ও মঙ্গা কবলিত বৃহত্তর রংপুরকে প্রাধান্য দিয়ে সারাদেশে বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। ফলশ্রুতিতে পর পর পাঁচটি অর্থ বছরে দেশের দারিদ্রপ্রবণ এলাকায় বিপুল সংখ্যক কর্মহীন মানুষের জন্য কর্মসৃজন হয়। বিগত পাঁচ বছরে গ্রামীণ অতিদরিদ্র ৯৩ লক্ষ ৬১ হাজার কর্মসংস্হান সৃষ্টির মাধ্যমে গ্রামীণ অতি দরিদ্র বেকার জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্হান ও ক্রয় ক্ষমতা বৃদ্ধি, গ্রামীণ অবকাঠামো ও যোগাযোগ উন্নয়ন, যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিবেশ উন্নয়ন এবং সম্পদ সৃষ্টি করা সম্ভব হয়েছে। তাছাড়া ১৯৭০ সালের ঘূর্ণিঝড়ে উপকূলীয় এলাকায় ৩ লক্ষ মানুষ মৃত্যুবরণ করেছিল। সেখানে ২০০৯ সালের প্রলয়ংকরী ঘূর্ণিঝড় আইলায় ১০৯ জনের প্রাণহানি ঘটে। সরকারের দুর্যোগ ঝুঁকিহ্রাস কার্যক্রম সম্প্রসারণের ফলে উপকূলীয় এলাকায় এ মৃত্যুহার হ্রাস করা সম্ভব হয়েছে। রূপকল্প-২০২১-এ জনগণের মৌলিক চাহিদা পূরণ, কর্মসংস্থানের নানা উদ্ভাবনী কর্মসূচির মাধ্যমে দারিদ্র হ্রাসকরণ এবং দুর্যোগ মোকাবেলার জন্য বর্তমান সরকার যে অঙ্গীকার করেছে তা এ মন্ত্রণালয় কর্তৃক সফলভাবে বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে।


Share with :
Facebook Facebook